ত্রিপুরার মূখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের জনসভায় গাড়িতে পিষে মানুষ খুনের চেষ্টা, ত্রিপুরায় গ্রেফতার সায়নী ঘোষ। সায়নী ঘোষের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা ত্রিপুরা পুলিশের।

দেশ

সায়নী ঘোষ টলিউডে একটা চর্চিত নাম এবং খবরের শিরনামে থাকা অভিনেত্রী ও রাজ্য তৃণমূলের যুব সভানেত্রী নিজের দোষে চরম বিপাকে পড়ে গেছেন। ত্রিপুরাতে মূখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সভাতে বিতর্কিত কথা ও উসকানি মূলক কথা বলে এবং পরে যখন সায়নীকে তাড়া করেন বিজেপি কর্মীরা তখন গাড়ি জোরে চালাতে গেলে গাড়ির ধাক্কায় আহত হয়েছেন বেশি কিছু মানুষ। গাড়িতে পিষে মানুষ খুনের চেষ্টা, ত্রিপুরায় গ্রেফতার সায়নী ঘোষ। সায়নী ঘোষের বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা ত্রিপুরা পুলিশের।

তৃণমূল সাংসদ সুস্মিতা দেবের বক্তব্য সায়নীকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। কিন্ত সুস্মিতা দেব ও কুনাল ঘোষদের পাত্তা দিতে নারাজ ত্রিপুরা পুলিশ। ত্রিপুরায় বিজেপি নেতারা বলছেন, বাংলা থেকে ভাড়া করা লোক নিয়ে গিয়ে ত্রিপুরায় হাওয়া গরম করছে তৃণমূল। ত্রিপুরাতে অশান্ত করতে চাইছে তৃণমূল। তৃণমূল কে ভয় পাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। তবে সায়নী ঘোষের গাড়িতে করে মূখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সভা দিয়ে যাওয়ার একটা ভিডিও খুব ভাইরাল হচ্ছে। এর ফলে ত্রিপুরা পুলিশ যে অভিযোগের ভিত্তিতে সায়নী ঘোষকে জামিন অযোগ্য মামলায় গ্রেফতার করেছে।

জানা গেছে শনিবার ত্রিপুরার চৌমহনি এলাকায় ত্রিপুরার মূখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের একটি সভার পাশ দিয়ে যাচ্ছিলেন সায়নী। সেই সময় ত্রিপুরায় বিজেপি সরকারকে উদ্দেশ্য করে সায়নী বলেছিলেন, খেলা হবে। এবং আরও বলেছিলেন ত্রিপুরার মূখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সভায় হাতে গুণে ৫০ জন লোক, এর থেকে তৃণমূলের প্রার্থীদের সভায় বেশি লোক হয়। এবং মূখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সভা দিয়ে যাওয়ার সময় বিজেপি কর্মীদের টিটকারি কাটে তার পর বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে বচসা শুরু হয়। তখন সায়নী ঘোষ ভিড়ের মধ্যে জোর করে গাড়ি চালিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।

এই ঘটনায় জখম হয়েছেন বেশ কজন এমনই অভিযোগ বিজেপি কর্মীদের ও পথ চলতি সাধারণ মানুষের। সায়নীর বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন বিশ্বজিৎ দেবনাথ। বিশ্বজিৎ দেবনাথ জানান, সায়নী ঘোষ মূখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের সভা দিয়ে যাওয়ার সময় বিজেপি কর্মীদের টিটকারি কাটে ও খেলা হবে বলেছিলেন। তারপর বিজেপি কর্মীদের সাথে সায়নী ঘোষের বচসা হলে ভিরের মধ্যে জোরে গাড়ি বের করে বেশ কয়েকজন মানুষকে গাড়ি চাপা দিয়ে চলে যায়। এরফলে কিছু মানুষ আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

ত্রিপুরা পুলিশ থেকে জানা গেছে তৃণমূলের যুবর সভানেত্রীর বিরুদ্ধে ১২০ বি, ৫০৬ ও ১৫৩ এবং ৩০৭ ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। রবিবার রাতে পুলিশ হেফাজতে ছিলেন তৃণমূলের যুব নেত্রী সায়নী ঘোষ। রবিবার বিকেল চারটে নাগাদ যুব তৃণমূল সভানেত্রীকে গ্রেফতার করা হয়। তার গাড়ির ধাক্কায় জখম হয়েছে বেশ কিছু মানুষ। এমনই অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে সায়নী ঘোষ কে। ত্রিপুরা পুলিশ তাঁর বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার মামলা রুজু করেছে।

সায়নী ঘোষ কে আগরতলা পূর্ব মহিলা থানায় রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে। রবিবার সকাল ১১টায় আগরতলার এক বেসরকারি হোটেলে পৌঁছায় ত্রিপুরার মহিলা পুলিশের এক বিশাল বাহিনী। সেখানে তৃণমূল নেতা কুনাল ঘোষ, সাংসদ সুস্মিতা দেব ও সায়নী ঘোষ ছিলেন। পুলিশ আধিকারিকরা জানান সায়নী ঘোষকে থানায় যেতে হবে। দীর্ঘ জিজ্ঞেসাবাদের পরে সায়নী ঘোষকে গ্রেফতার করে ত্রিপুরা পুলিশ। তৃণমূল নেত্রী সায়নী ঘোষ এবার নিজের দোষে চরম বিপাকে পড়ে গেছেন। তার বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় মামলা রুজু করেছে ত্রিপুরা পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *